শরীর ভালো না। শুয়ে আছি প্রায় সতেরো ঘন্টা হয়। সকালে অবশ্য দুই মিনিটের বিরতি নিয়ে বের হয়েছিলাম। নিচে নেমে দেখি দারোয়ান তার সিটে নেই। নিশ্চয়ই তার মন খারাপ। তাই ডিউটি ফেলে গেটের বাইরে গিয়ে হাঁটাহাঁটি করছে।

আমি দারোয়ানের সিটে গিয়ে বসে পড়লাম। তারপর খুব সতর্কভাবে বাড়ি পাহারা দেয়া শুরু করলাম। দুমিনিট না যেতেই দারোয়ান এসে পড়লো। আমাকে তার সিটে বসে থাকতে দেখেই সে ভয়ে পালিয়ে গেলো। আমি পাহারা দেয়া চালিয়ে গেলাম।

মিনিটপাঁচেক পর সে আবার আসলো। এসে গেটের সামনে সতর্ক অবস্থানে দাঁড়িয়ে থাকলো। আমি ধীরপায়ে চেয়ার থেকে উঠে তার দিকে এগিয়ে গেলাম। একদম কাছে গিয়ে বললাম, ‘আয় ভাই আয়। কি হয়েছে তোর? মন খারাপ ক্যান?’

হারামজাদাটা কোনো কথাই বললো না। সে বুকে হাত দিয়ে রেখেছে। দেখে মনে হলো, সে ভাবছে আমি তার বুকে পাড়া দিবো। কি অদ্ভুত !

তাকে চেয়ারে বসিয়ে দিয়ে এলাকার দোকান থেকে এক বোতল জুস কিনে এনে দিলাম। হাতের ম্যাগাজিনটা তাকে দিয়ে এলাম। বসে বসে পড়ুক…

এখন বাসায় এসে শুয়ে আছি। কিছুই ভালো লাগেনা…

Comments

comments